লিখিত বক্তব্য পাঠ করছেন ব্যবসায়ী স্বপন কুমার দে-সিএনএ

উচ্ছেদের পর ব্যবসায়ীকে প্রাণে মারার হুমকি

নগরের চাক্তাইয়ে এক ব্যবসায়ীকে উচ্ছেদের পর প্রাণে মেরে ফেলার হুমকির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) বেলা ১২টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী ও মেসার্স সমতা হার্ডওয়্যার স্টোরের স্বত্ত্বাধিকারী স্বপন কুমার দে এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে স্বপন কুমার দে বলেন, ৪৩ বছর ধরে চাক্তাই এলাকায় ব্যবসা পরিচালনা করছি। ৩৫ নম্বর বক্সিরহাট ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উল্লাহ বাহাদুর ও তার বাহিনীর অত্যাচারে বর্তমানে আমি নিঃস্ব। গত ৩০ জুন ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বাহাদুরের সন্ত্রাসীরা অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়ে আমার সহায়-সম্বল লুটে নেয় এবং জোরপূর্বক উচ্ছেদ করেন। এসব বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি, পুলিশ কমিশনার, বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আবেদন-নিবেদন এবং মামলা করে প্রতিকার চেয়েছি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বাহাদুর বাহিনীর অত্যাচার আরও বেড়ে গেছে। মামলার সাক্ষীদের সাক্ষ্য না দিতে প্রতিনিয়ত ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে।

তিনি বলেন, গুদাম ও কারখানার মালিক বিশ্বেশ্বর ও রাজকুমারী পাল থাকাকালীন উক্ত জায়গায় ঘর করে আমি ৪৩ বছর ধরে পরিবার নিয়ে বসবাস এবং গুদামঘর নির্মাণ করে হার্ডওয়্যার ব্যবসা পরিচালনা করছি। এ অবস্থায় জনৈক আবদুল লতিফ গুদাম ও কারখানা থেকে উচ্ছেদ করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে আমাকের হুমকি দিয়ে আসছেন। এ নিয়ে ২০১৮ সালের ১১ মার্চ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মিচ মামলা (৪৪৮/২০১৮) দায়ের করা হয়। বর্তমানে মামলাটি চলমান রয়েছে। মামলা চলমান অবস্থায় আবদুল লতিফের ইন্ধনে ফয়েজ উল্লাহ বাহাদুর বাহিনী রাতের আঁধারে ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এ সময় কারখানা ও গুদামের প্রায় ৫ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয় বাহাদুর বাহিনীর সন্ত্রাসীরা।

তিনি আরও বলেন, গত ১৬ মার্চ চিকিৎসা শেষে ভারত থেকে দেশে ফিরে আসার পর আমাকে বেআইনিভাবে উচ্ছেদ করতে বারবার হুমকি-ধমকি দিচ্ছে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। এ বিষয়ে স্থানীয় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি ও ব্যবসায়ীদের অবহিত করে সহায়তা চাওয়ার পর একাধিকবার আপস-মীমাংসার জন্য বৈঠক করা হয়। কিন্তু এসবে কর্ণপাত না করে ওই আওয়ামী লীগ নেতা ক্ষমতার দাপট ও সন্ত্রাসীদের প্রভাবে প্রতিনিয়ত ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে আসছেন। ব্যবসা ছেড়ে চাক্তাই থেকে চলে যাওয়ার জন্য কঠোর চাপ ও হুমকি দেয়। না হলে আমাকের ও পরিবার সদস্যদের পুড়িয়ে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। চলতি বছরের গত জুন মাসে ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উল্লাহ বাহাদুর তার ক্যাডার বাহিনী নিয়ে আমাকে ও পরিবারের সদস্যদের এলাকাছাড়া করেন।

আওয়ামী লীগ নেতার অন্যায়-অত্যাচার, জুলুম ও জোরপূর্বক উচ্ছেদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ন্যায় বিচার চেয়েছেন ভুক্তভোগী স্বপন কুমার দে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রূপালী দে, অজিত ঘোষ, শান্তিরঞ্জন দাশ, সুমিত্রী খাস্তগীর, মৃদুল চৌধুরী।

বিবি/টিআর

 spankbang