শঙ্করমঠের শতবর্ষপূর্তি বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের উদ্বোধন

সীতাকুন্ড শঙ্করমঠের শতবর্ষপূর্তি উপলক্ষে ৮ দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ ১৬ নভেম্বর ২০২১ ইংরেজি মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় ধর্মীয় আবহে জাতীয় ও গৈরিক পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও শান্তির কপোত অবমুক্তকরণের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন শঙ্করমঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ ও শতবর্ষপূর্তি উৎসব উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্রীমৎ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজ। মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করেন ঢাকাস্থ রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী পূর্ণাত্মানন্দজী মহারাজ ও অখÐ প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করবেন আমেরিকার কলরেডো নিবাসী শ্রীমৎ পরমানন্দ সরস্বতী। এর পর বিকেল সাড়ে ৪টায় শতবর্ষপূর্তি উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মঠের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজের সভাপতিত্বে ও উৎসব উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর কেশব কুমার চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার শ্রী অনিন্দ্য ব্যানার্জী। প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ শক্তিনাথানন্দজী মহারাজ। প্রধান ধর্মীয় আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ প্রফেসর ড. জ্যোতি প্রকাশ দত্ত। মূখ্য আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট দানবীর ও সমাজসেবক লায়ন অদুল চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি সাংবাদিক প্রদীপ কুমার শীল, অধ্যাপক তড়িৎ কুমার ভট্টাচার্য, শ্রীমৎ জগদীশ্বরানন্দ ব্রহ্মচারী, মঠের মহানগর কমিটির যুগ্ম সম্পাদক অজিত কুমার শীল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক রনজিত কুমার শীল, প্রবাসী সনজিত কুমার শীল, প্রবাসী প্রসনজিত শীল প্রমূখ।
সভায় অতিথিবৃন্দরা বলেন, এদেশে সকল ধর্মাবলম্বীরা সহাবস্থানে থেকে নিজ নিজ ধর্ম-কর্ম পালন করে আসছে। এটি সহ্য করতে না পেরে একটি মহল দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টসহ দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। যারা ধর্মের দোহায় দিয়ে অপকর্মে লিপ্ত রয়েছে তারা দেশ ও জাতির শত্রæ। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় যে কোন অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। অনুষ্ঠান উপলক্ষে সকাল থেকে গুরু পূজা, অখন্ড গীতাপাঠের ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ মনোহারিত্ব অনুষ্ঠান, শ্রীশ্রীবিশ্বশান্তি গীতাযজ্ঞ, মঙ্গলারতি, গুরু বন্দনা, হরি ওঁ কীর্ত্তন, শ্রীশ্রী চÐী ও বেদপাঠ করা হয়।###

 spankbang