চট্টগ্রামে ব্যবসায়ীকে মারধর সন্ত্রাসীদের হুমকি

নগরের বাকলিয়ায় ব্যবসায়ী সাহাব উদ্দিনের ছিনতাই হওয়া ৫ লাখ টাকা পাঁচ দিনেও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। ছিনতাইকারীদের হামলায় আহত ব্যবসায়ীর অবস্থাও আশঙ্কাজনক। মামলা তুলে নিতে আসামিরা হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
গত ৩০ মে রাত সাড়ে ১০টায় নগরের কল্পলোক আবাসিক এলাকায় ১০/১৫ জন সন্ত্রাসী রিয়াজউদ্দিন বাজার নুপুর মার্কেটের পাদুকা ব্যবসায়ী সাহাব উদ্দিনকে মারধর করে ৫ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এসময় নুর কামাল সিকদার (৩৫), রাশেদ নুর সিকদার (৩২) ও স্ত্রী রুনা আক্তার (২৮) সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হয়। সন্ত্রাসীরা সাহাব উদ্দিনকে ছুরিকাহত করলে তাঁর মাথা ফেটে যায় এবং পা ভেঙ্গে দেয়। মূমূর্ষ অবস্থায় স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়। চিকিৎসকরা জানিয়েছে, ব্যবসায়ী সাহাব উদ্দিনের অবস্থা আশঙ্কাজক। হাতুড়ির আঘাতে ভেঙ্গে দেয়া পা’র অবস্থাও ভাল না।
এ ঘটনায় ১ জুন সাহাব উদ্দিনের স্ত্রী রোনা আক্তার বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় বাকলিয়ার মিয়া বাজার এলাকার সন্ত্রাসী মোহাম্মদ ইমন (২৬), লতিফহাট এলাকার মাসুদ কানা মাসুদ (২৪), আসাদগঞ্জ এলাকার মুন্না শাহ (৩৮), কল্পলোক আবাসিক এলাকার মোহাম্মদ রাশেদ (৩৬) ও মোহাম্মদ আকাশ (২৩) সহ ১০/১৫ জন সন্ত্রাসীকে আসামি করা হয়।
মামলার বাদি রোনা আক্তার বলেন, আসামিরা দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী। মামলা তুলে নেয়ার জন্য আমাদের চাপ দিচ্ছে। প্রতিদিন মোটরসাইল করে বাসার সামনে এসে মহড়া দিচ্ছে। স্বপরিবারে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। ভয়ে আমরা এক প্রকার গৃহবন্দি।
আহত সাহব উদ্দিন বলেন, গত ঈদের আগ থেকে সন্ত্রাসী বাহিনীটি আমার কাছে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাসায় ফেরার পথে বেশ কয়েকবার আটকিয়ে চাঁদা দাবি করছিল। পরিবারের লোকজনকে অপহরণ করবে বলে হুমকি দিয়ে আসছিল। তাদের ভয়ে প্রায় সময় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ফিরতে পরিবারের লোকজনকে সঙ্গে করে নিয়ে আসতাম। গত ৩০ মে রাতে ব্যবসা থেকে ফিরতে ওই সন্ত্রাসীরা মারধর করে পাঁচ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়।
সাহাব উদ্দিন বলেন, তারা টাকা ছিনতাই করেছে, স্ত্রী-শেলকসহ চার আত্মীয়কে মেরেছে। মামলা করার পর তারা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। কল্পলোক ১নং রোড়ের সিকদার ভিলার বাসায় ঢিল মারছে। থানায় মামলা করলেও পুলিশ তাদের খুঁজে পাচ্ছে না।
সাহাব উদ্দিনের ব্যবসায়ীক পার্টনার জামাল উদ্দিন বলেন, সন্ত্রাসীরা চাঁদা দাবির পর সাহাব উদ্দিন বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বের হতে ভয় পেত। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দিয়েছিলাম। এর আগেই সাহাব উদ্দিন হামলার শিকার হয়ে গেল।
রিয়াজ উদ্দিন বাজার নুপুর মার্কেট বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, আমাদের রাজস্ব দিয়ে দেশ চলে,কিন্তু আমরা ব্যবসায়ীরা নিরাপদ না। পুলিশ প্রশাসন হামলাকারীদের গ্রেফতার ও ছিনতাই হওয়া টাকা উদ্ধার করতে পারলে আমরা ব্যবসায়ী সমাজ বৃহত্তর আন্দোলনে যাব।
এ বিষয়ে বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রুহুল আমিন বলেন, আসামিদের গ্রেফতারে চেস্টা চলছে।

 spankbang