যুবলীগের রাজনীতি ধ্বংসে বিএনপি

চট্টগ্রাম : কক্সবাজারের পেকুয়ায় যুবলীগের রাজনীতি ধ্বংসে স্থানীয় বিএনপির বিরুদ্ধে প্রপাগান্ডা চালানোর অভিযোগ ওঠেছে। পেকুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম এবং উপজেলা যুবলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মোহাম্মদ আজমগীরের বিরুদ্ধে কল্পকাহিনী সাজিয়ে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। শনিবার (৫ ডিসেম্বর) বিকাল ৪টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেছেন পেকুয়ায় উপজেলা যুবলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মোহাম্মদ আজমগীর।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, পেকুয়া যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পরে সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর পেকুয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন। তার ডাকে সাড়া দিয়ে দলের ছায়াতলে লোকজন যখন ভিড়তে শুরু করলো তখন বিএনপির চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও পরাজিক শক্তি জাহাঙ্গীর আলম ও মোহাম্মদ আজমগীরের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। এরই ধরাবাহিকতায় গত ২০ নভেম্বর কথিত সংবাদ সম্মেলন করে জনৈক হাজি মকসুদ নামের এক ব্যক্তি।

মোহাম্মদ আজমগীর বলেন, মকসুদ ও তার পরিবারের লোকজন বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকলেও তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে পরিচয় দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। প্রকৃত পক্ষে মকসুদগংদের বিরুদ্ধে এলাকায় অসামাজিক কার্যকলাপসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলমের নেতৃত্বে পেকুয়া আওয়ামী পরিবার যখন ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাচ্ছে ঠিক তখনই স্বার্থান্বেষী ঐক্যবিনাশী খন্দকার মোস্তাকের প্রেতাত্মারা অর্থলোভী হাজী মকসুদকে দিয়ে এহেন ষড়যন্ত্রকারী মিথ্যা প্রপাগান্ডা ছড়াচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, পেকুয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম সুদীর্ঘকাল ধরে বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের অধিকারী । একজন সফল দলনেতা থেকে জননেতায় পরিণত হয়েছেন জনগণের ভালবাসায় । যার ফলশ্রুতিতে তিনি বার বার নির্বাচিত হয়েছেন জনপ্রতিনিধি হিসেবে । ইউপি সদস্য থেকে শুরু করে জেলা পরিষদ সদস্য এবং সর্বশেষ বিপুল ভােটে নির্বাচিত পেকুয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি বর্তমানে সুনামের সাথে দায়িত্বপালন করছেন । তিনি জীবনে কোন নির্বাচনে পরাজিত হননি ।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নূর মোহাম্মদ, ফোরকান উদ্দিন প্রমূখ।

 spankbang