মালটা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

 

যথাযোগ্য মর্যাদা, উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ভাব গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে মালটা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহীদ দিবস পালন করা হয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারি মালটা আওয়ামী লীগের সভাপতি মশিউর রহমানের বাসার হলরুমে একুশের কর্মসূচি শুরু করেন বাংলাদেশী অবস্থানরত মালটা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। মালটা আওয়ামী লীগের সভাপতি মশিয়ার রহমানের সভাপতিত্বে ও মালটা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক কাওসার আমিন হাওলাদার এর পরিচালনায় ও প্রচার সম্পাদক সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ মুরসালিন ও জাতীয় সংগীত পরিবেশনা করে সকল শহীদদের প্রতি এক মিনিটের নীরবতা পালন করা হয়. মালটা আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব মশিউর রহমান সমবেত অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন। বক্তব্যের শুরুতে তিনি ভাষা শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও সকল ভাষা সৈনিকদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি তাঁর বক্তব্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৪৮ সালে মাতৃভাষার দাবিতে গঠিত সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের নেতৃত্বদানকারী ও এ কারণে তার কারাবরণের কথা বিনম্র চিত্তে স্মরণ করেন। একুশের আলোচনায় অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাল্টা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজেম আলী স্বপন. সহ সভাপতি জাকারিয়া মুন্সি এছাড়া উপস্থিত ছিলেন হাবিবুর রহমান,ফাহিম পাটোয়ারী, আজাদ, সাইদুর রহমান দুর্জয়, ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ অতিথিরা বক্তব্যের প্রথমেই বায়ান্ন’র ভাষা আন্দোলনে সকল শহীদদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন। ভাষাকে মায়ের মতো দেখতে হবে উল্লেখ করেন আরো বলেন মাকে যেভাবে আমরা ভালোবাসি, সেভাবে বাংলা ভাষাকেও ভালোবাসলে আমাদের ভাষার সঠিক চর্চা থাকবে সবসময় বাংলা ভাষার চর্চ্চা চালিয়ে যেতে হবে। সাধারণ সম্পাদক কাউসার আমিন হাওলাদার বলেন বাংলাদেশ বিশ্বে যে উন্নয়নের সফল রুল মডেল হয়েছ তার বড় বাহক হচ্ছে আমাদের ভাষা। ইউনেস্কো কর্তৃক মহান একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি লাভের ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা পালনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি তাঁর বক্তব্যে বাংলাদেশের মাতৃভাষা দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে ভাষা ও বাংলা সংস্কৃতি রক্ষার্থে সকল ক্ষেত্রে বাংলার ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য সকল বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান ও নাগরিকের প্রতি আহ্বান জানান। একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক অগ্রগতির নিমিত্ত প্রধানমন্ত্রী জননেন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গৃহীত রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ এবং ডেল্টা প্লান-২১০০ বাস্তবায়নের মাধ্যমে জাতির পিতার ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের এক সাথে কাজ করার আহ্বান ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী সকল বাংলাদেশীকে যথাযথ মর্যাদায় পালন করার আহ্বান করেন. অনুষ্ঠান শেষে আমন্ত্রিত অতিথিদেরকে ধন্যবাদ ও মাতৃভাষা দিবসে ভাষা কে সম্মান জানিয়ে সবার মাঝে বাংলাদেশী খাবার আপ্যায়নের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়।

 spankbang