পেঁয়াজের পাশাপশি ভোগ্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি

সারা দেশে পেঁয়াজের পাশাপাশি শীতের শুরুতে নগরের ।ভোগ্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি ব্যবসায়ীদের কারসাজিতে বছরের শেষ সময়ে এসে দেশে ভোগ্যপণ্যের বৃহত্তম পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে দাম বেড়েছে অধিকাংশ মসলার। পেঁয়াজ-রসুন থেকে শুরু করে এলাচ-লবঙ্গ প্রায় সব মসলার দামই চড়া।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) কয়েকটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১৮০ টাকা ও খুচরা বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ২০০-২২০ টাকায়। এছাড়া এক সপ্তাহ আগে ১৭০ টাকায় বিক্রি হওয়া আমদানিকৃত চায়না আদা এখন বিক্রি হচ্ছে (প্রতি কেজি) ২০০-২৫০ টাকায়। দেশি আদা বিক্রি হচ্ছে ২০০-২৬০ টাকায়। সপ্তাহখানেক আগে যা বিক্রি হয়েছিল ১৬০ টাকায়।

আমদানিকৃত চায়না রসুন বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৮০ টাকা কেজি। আর দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয় ১৪০ টাকা কেজি দরে।

গোলমরিচ, হলুদ, মরিচ গুঁড়া, জয়ত্রী, এলাচ ও দারুচিনির দামও বেড়েছে। প্রতি কেজি এলাচ ও জয়ত্রী বিক্রি হচ্ছে আড়াই হাজার টাকার উপরে। এর বাইরে লবঙ্গ ৮৭০ টাকা, গোলমরিচ ৬০০ টাকা, জিরা সাড়ে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা ও দারুচিনি ৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়াও পাইকারি বাজারে ১৫ দিনের ব্যবধানে প্রতি কেজি দারুচিনির দাম ২৮০-২৮৫ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৪০০-৪১০ টাকা। এলাচি মান ভেদে ২ হাজার ২০০ থেকে ২ হাজার ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা দুই সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে দাম বেড়েছে ১০০ টাকার বেশি।

দুই সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে গড়ে ১০ থেকে ৩০ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি লবঙ্গ ৭৯০-৮০০ টাকা, ইন্ডিয়ান জিরা ৩০০-৩১০ টাকা, তুরস্কের জিরা ৩৬৫-৩৭০ টাকা, কালো গোলমরিচ ৩৭৫-৩৮০ টাকা, সাদা গোলমরিচ ৫৯০-৬০০ টাকা, কালো জিরা ১৬৫-১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। জয়ত্রী ২ হাজার ২৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হলেও দুই মাস আগে এর দাম ছিল ১ হাজার ৬০০-১ হাজার ৭০০ টাকা।

খুচরা ব্যবসায়ী আমিন হোসেন জয়নিউজকে বলেন, পাইকারি ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়ে দিয়েছে তাই আমাদেরও দাম বাড়াতে হচ্ছে।

বাজারে মসলা কিনতে আসা নয়ন দাশ জয়নিউজকে বলেন, দাম বাড়ানো ব্যবসায়ীদের কারসাজি। এইভাবে করে তো আর চলা যায় না। পেঁয়াজ থেকে শুরু করে সবকিছুর দাম বাড়তি। এই অসাধু তৎপরতা বন্ধ করতে সরকারের বাজার মনিটরিং কার্যক্রম আরো জোরদার করা উচিত।

চাক্তাই খাতুনগঞ্জে আড়তদার ব্যবসায়ী সমিতির সাবেক সভাপতি সোলেমান বাদশা বলেন, আমদানিমূল্য বেড়ে যাওয়ায় দেশের বাজারে মসলার দাম বাড়ছে। কয়েক সপ্তাহ আগে থেকেই নগরের পাইকারি বাজারে আদা ও রসুনের দাম বাড়তি।

 spankbang