কোরবানি পশু আসতে শুরু করেছে বাজারে

আসন্ন ঈদুলআযাহা কে সামনে রেখে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে কোরবানিপশু চট্টগ্রামের বাজার গুলোতে আসতে শুরু করেছে ।শনিবার সকালে সাগরিকা মোড় মাসুমের গরু বাজারে গিয়ে দেখা গেছে কুষ্টিয়া থেকে আসা ট্রাক থেকে বড় বড় সাইজের কোরবানি পশুগুলো এক এক করে নামাচ্ছে বাজারে পাশাপাশি নামছে ছাগলও। শুধু সাগরিকা মোড় বাজার নয় বিবিরহাট, কর্ণফুলি,মইজ্জ্যারটেক, পতেঙ্গা,একেখান মাঠ সহ নগরের সব কোরবানি বাজার ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। তবে এখনো বাজার গুলো সম্পূর্ণ ভাবে তৈরী করা হয়নি এখনো বাজারের খুটিঁ গুলো পোতানো হচ্ছে কেউ আবার বালি দিয়ে বিভিন্ন গরুকে রাখার জন্য বাজার সমান করতে আবার প্রাকৃতিক দূর্যোগ বৃষ্টিথেকে বাচতে উপরে দেয়া হ্েচ্ছ টিনের ছাউনি ও উপরে দেয়া হচ্ছে প্লাস্টিক তেরপাল দিতে দেখা যায়। আগামী রবিবার থেকে বিভিন্ন জেলা থেকে ট্রাকে ট্রাকে গরু আসা শুরু হবে বলে জানিয়েছে খুটি ব্যবসায়ীরা।
এদিকে কুষ্টিয়া থেকে আসা গরু ব্যবসায়ী আজিবর বলেন, আমরা এবার তাড়াতাড়ি গরু নিয়ে বাজারে চলে এসেছি কোরবান উপলক্ষে বাজার গুলো তে জায়গা পাওয়া যায়না তাই আগেভাগে আসতে হলো। দেরীতে আসলে রাস্তায় গরু বেচাকেনা করতে হয় । রাস্তা ভাংগা হওয়ার কারনে চট্টগ্রামে আসতে দেরী হচ্ছে এমন অভিযোগ করেন। তিনি আরো বলেন, কুষ্টিয়া থেকে চট্টগ্রামে আসতে প্রায় প্রতিগাড়ী ৫০ হাজার টাকা খরচ পরে তাছাড়া খাওয়া দাওয়া নিজেদের খরচ তো আছেই।
চট্টগ্রামের বাজারে আসার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, একথায় বেশী দামে বিক্রি করা যায় চট্টগ্রামের বাজারগুলো বিভিন্ন সুযোগসুবিধা রয়েছে থাকা খাওয়ার সুযোগ সুবিধা আছে বিশেষ করে নিরাপত্তার বিষয়টি চিন্তা করতে হয়না । যথেষ্ট সুযোগ সুবিধা রয়েছে বাজারগুলোতে। এদিকে খুটি ব্যবসায়ী আকবর মামা বলেন
দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আমার বাজারে গরু আসা শুরু হয়েছে । বেশী পরিমানে পশুবাহি ট্্রাক বাজারে আসতে শুরু করবে কয়েকদিনপর কারন বেপারিরা
অনেকে বন্যার কারনে গাড়ীতে কোরবানি পশু তুলতে পারছেনা বেপারিয়া। এব্যাপারে খুটি ব্যবসায়ী মাসুম বলেন, প্রতিবছরের মত এবারও একটু আগেভাগে গরু আসতে শুরু করেছে বাজারে। সবগুলো কুষ্টিয়া থেকে আসে কুষ্টিয়া ছাড়া অন্য কোন জেলার গরু আমার বাজারে ঢুকেনা কারন চট্টগ্রামের মানুষ কুষ্টিয়ার গরু পছন্দ করে বেশী তাছাড়া এসব গরুগুলো বেশ মোটা তাজা সুন্দর। আমরা বেপারিদেরকে ছয়মাস আগে বুকিং দিয়ে রাখতে হয় রড় জাতের সুন্দর গরু চট্টগ্রাম বাজারে নিয়ে আসার জন্য। নিরাপত্তার বিষয়ে পাহাড়তলী থানার ইনচাজ মঈনুর বলেন, গতবারের চেয়েও এবার আরো কঠোর নিরাপত্তা জোড়দার করা হবে এবং পুরো সিসি টিভি ক্যামেরার আওতায় পুরোবাজার মনিটরিং করা হবে যথেষ্ট অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হবে।বাজারের মাঠে জাল টাকা সনাক্ত করতে সাদাপোশাকে থাকবে পুলিশ।

 spankbang