মাদক ব্যবসায়ীদের গেপ্তারে দাবিতে মানবন্ধন ও সড়ক অবরোধ

 

নিজস্বপ্রতিবেদকঃ নগরীর আকবরশাহ থানার কর্ণেলহাটে সন্ধ্যা রানীর খুনি মাদকাসক্ত সত্যজিৎ ঘোষ পপির ফাঁসি ও উত্তর কাট্রলীর মাদক ব্যবসায়ী ও পৃষ্টপোষককারীদের দ্রুত গেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ করেছে স্থানীয়রা।

সোমবার ( ১৩ মে) সকালে আকবরশাহ থানার কর্ণেলহাট এলাকায় মানবন্ধনও পরে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে স্থানীয়রা।

এ সময় তারা এলাকা মাদকমুক্ত করা মাদক ব্যবসায়ীদের পৃষ্টপোষককারী ও মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া সত্যজিৎ এর ফাঁসির দাবি জানায়।

মানবন্ধনে নগর আওয়ামীলীগের সহ – সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বলেন, আকবর শাহ থানার সিটি গেইট থেকে শুরু করে প্রায় সব এলাকা মাদকের মধুচক্র হয়ে গেছে। আর এর পিছনে কয়েকজন পুলিশের হাত আছে। আমি ১০ নাম্বার ওর্যাড কাউন্সিলর নেছার সাহেব কে বলব আপনি দ্রুত এর বিরুধে অ্যাকশন নিন দরকার হলে আমরা সবাই সহযোগিতা করবো। পুলিশ কমিশনার মহোদয় এর কাছে দাবি মাদকের সাথে জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন নতুবা আমরা সরাষ্টমন্ত্রীর দারস্থ হবো। আমরা চাইনা মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের বেপরোয়া হামলায় সন্ধ্যা রানির মত আমরা কোন ভাই বোন কে হারাতে।

মানবন্ধনে প্যানেল মেয়র ১০ নং ওর্যাড কাউন্সিল নেছার উদ্দিন মঞ্জু বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে মাননীয় নেত্রী যুদ্ধ ঘোষনা করেছে আমরা সব সময় মাদকের বিরুদ্ধে আছি কিন্ত পুলিশ প্রশাসনের কিছু সদস্য জড়িত থাকায় মাদকের সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তার করিয়ে দেয়ার পরও তারা ছাড়া পেয়ে যায়। কিন্ত আর কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা আমি জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের সাথে কথা বলব। সেইসাথে যারা মাদক ব্যবসায়ীদের পৃষ্টপোষক করে তাদের ও ছাড় দেয়া হবেনা।

আকবরশাহ থানার ওসি (তদন্ত) মহিবুর রহমান বলেন, সন্ধ্যারানীর হত্যাকারী মাদকাসক্ত সত্যজিৎ কে আমরা অইদিনই গ্রেপ্তার করেছি এবং মাদক ব্যবসায়ী শিল্পী রানি মন্ডল কেও গত পরশু ১২০ পিস ইয়াবা সহ গ্রেপ্তার করেছি। আমরা মাদকের সাথে জড়িত অন্যদেরও দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসবো।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার ( ) সন্ধ্যায় মাদকসক্ত সত্যজিৎ ঘোষ পপি’র ধারালো দা’র এলোপাতাড়ি কোপে নিহত হয় উত্তর কাট্রলী কালি বাড়ি এলাকার সন্ধ্যা রানী (৬০) ও গুরতর আহত হয় আরো ৫ জন।

 spankbang