বাউবি চট্টগ্রাম কেন্দ্রে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ৭ মার্চ উদযাপন

 

সিএনএ : নগরীর সিআরবি এলাকায় বাউবি (বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়) চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কেন্দ্রে আজ বুধবার সকালে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদ্্যাপন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
এই উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাউবি চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কেন্দ্রের পরিচালক বদরুল হায়দার চৌধুরী। এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাউবি চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কেন্দ্রের উপ-পরিচালক টি এম আহমেদ হোসেন, কক্সবাজার কেন্দ্রের উপ-আঞ্চলিক পরিচালক শ্যাম রঞ্জন কর্মকার, রাঙামাটি কেন্দ্রের সহকারী আঞ্চলিক পরিচালক হাবিবুর রহমান, বান্দরবান কেন্দ্রের কো-অর্ডিনেটিং কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি কেন্দ্রের সহকারী আঞ্চলিক পরিচালক হেলাল উদ্দিন পাটোয়ারি প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বাউবি চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কেন্দ্রের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ।
সভায় বক্তারা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উদাত্ত কণ্ঠে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ ছিল শোষণ পীড়িত বাঙালি জাতির মুক্তির দিক নির্দেশনা। বাঙালির আত্মপরিচয়ের গৌরবদীপ্ত প্রেরণা। যা আজ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। জাতির জনকের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমাদের ঐক্যবদ্ধ কর্মউদ্যোগ ও প্রচেষ্টায় সমৃদ্ধ দেশ গঠণে ব্রতী হতে হবে যার যার অবস্থান থেকে।
সভাপতির বক্তব্যে বাউবি চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কেন্দ্রের পরিচালক বদরুল হায়দার চৌধুরী বলেন, প্রত্যেক বছরই এই ভাষণটা যখন বাজতো তখন হৃদয়ের মাঝে একটা কম্পন সৃস্টি হতো এবং মনে হতো এ ধরনের কোনো ভাষণ পৃথিবীতে কেউ দিয়েছেন কিনা জানিনা। এটা তো হতে পারে একটি অবিস্মরণীয়, ঐতিহাসিক ভাষণ। আর সেই ভাবনাটা করতে করতে গত বছর শুনলাম ৭ মার্চের জাতির জনকের ভাষণ জাতিসংঘ কর্তৃক স্বীকৃতি পেয়েছে। এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। জাতির জনকের ঐতিহাসিক ভাষণ এখন আমাদের জাতীয় মর্যাদার সীমানা ছাড়িয়ে বিশ্ব আসনে আসীন হয়েছে। এটি পরিণত হয়েছে বিশ্ব সম্পদে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকনের ঐতিহাসিক গেটিসবার্গ ভাষণ, যে ভাষণে দাসপ্রথা বিলুপ্ত হয়েছে তার সঙ্গে তুলনীয় ৭ মার্চ জাতির জনকের ঐতিহাসিক ভাষণ। আমরা সেই গৌরবের উত্তরাধিকার। সেই সূত্র ধরে আমাদেরকে এদেশের ভাবমূর্তি বিশ্ব দরবারে উজ্জ্বল করতে এগিয়ে আসতে হবে। উন্নত দেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে অবদান রাখতে হবে।
আলোচনা সভার পরে বেলুন উড়িয়ে এবং মিষ্টি মুখ করে আজকের দিনটিকে আনন্দঘনভাবে উদ্্যাপন করা হয়।
বাউবি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের ক্যাম্পাস জুড়ে ছিল উৎসবের আয়োজন। বিশাল ব্যানার জুড়ে ছিল জাতির জনকের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের প্রতিচ্ছবি। সেই সঙ্গে শোভা পাচ্ছিল মহান ৭ মার্চ ‘ওয়াল্ড ডবুমেন্টারি হেরিটেজ’ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার বর্ণণা। আর সেই সঙ্গে ক্যাম্পাসের সবুজ গাছে গাছে ছোট ছোট ব্যানারে দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরা বিভিন্ন স্লোগান। পাশাপাশি মাঝারি আকারের কয়েকটি ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা সচেতনতার অংশ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে কবি সুফিয়া কামালের ডায়েরি থেকে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের সংক্ষিপ্ত ঘটনাপঞ্জি, মুজিব নগর সরকারের মন্ত্রিপরিষদের সদস্যদের তালিকা, ৭ মার্চের ভাষণের তাৎপর্য ও মুক্তিযুদ্ধ কালীন বিভিন্ন স্লোগান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*