সিএনএ নিউজ: সম্প্রতি ‘হ্যারিস ইন্টার‌্যাক্টিভ’ নামের এক অনলাইন সমীক্ষা সংস্থা একটি সমীক্ষা চালিয়েছিল ঠিক কোন কোন পেশায় উল্লেখযোগ্য ভাবে ওজন বাড়ে, তা নিয়ে।

নীচে সেই সমীক্ষা থেকে ৮টি চাকরির কথা তুলে ধরা হল।

১. ট্রাভেল এজেন্ট— পেশা ভ্রমণের সঙ্গে সম্পৃক্ত হলেও এঁরা সাধারণত চেয়ার ছেড়ে উঠে ঘোরাফেরা করার সময়ে পান না। ক্লায়েন্টদের মিট করতে করতেই সূর্য ঢলে পড়ে। ক্লান্তি আর অবসাদ নিয়ে বাড়ি ফিরে শরীর বয় না। ওজন তার বিপদসীমা ছাড়ায়।

২. আইনজীবী— কোর্টে দাঁড়িয়ে তুখোর সওয়ালে ঘায়েল করেন প্রতিপক্ষকে। কিন্তু, দিন ও রাত মুখ গুঁজে পড়ে যেতে হয় আইনের মারপ্যাঁচ। ফলত, চেয়ার-বাস অবধারিত। তার উপরে এই জীবিকায় চাপ ও উদ্বেগ অত্যন্ত বেশি। ওজন না বেড়ে যাবে কোথায়?

৩. শিক্ষক— সারাবেলা কেটে যায় চেয়ার-টেবিলে। লেকচার দিতে গিয়ে বড়জোর প্ল্যাটফর্মে দাঁড়ানো। তার উপরে যেটুকু প্রশাসনিক দায়িত্ব তাঁদের পালন করতে হয়, সেটুকুও বসেই। ফলে ওজন বাড়ে।

৪. শিল্পী— এই পেশায় নড়ন চড়নই নেই। বসে বা দাঁড়িয়ে ছবি আঁকা, ভাস্কর্য সৃজন। আর শুয়ে বা বসে ভাবা। কল্পনা লাগামহীন। কিন্তু সেই সূত্রেই এঁরা ভোগেন ডিপ্রশনে। মাথার ভিতরে সর্বদা কাজ করে, যোগ্য মর্যাদা পেলাম না-গোছের বাক্য। ডিপ্রেশন বাড়ে। সঙ্গে সঙ্গে ওজনও।

৫. বিজ্ঞানী— মারাত্মক মেধার কাজ। কিন্তু শরীর স্থানু। মাথা ছুটে চলেছে গ্রহে-গ্রহান্তরে-ইলেক্ট্রনে-প্রোটনে। কিন্তু চেয়ার ছেড়ে, মাইক্রোস্কোপ থেকে চোখ তোলার সময় প্রায় নেই। নিঃসাড়ে ওজন বাড়ে।

৬. পুলিশ অফিসার— আমাদের দেশে ফিট চেহারার পুলিশ অফিসার সিনেমা ছাড়া দেখা যায় না বললেই হয়। পুলিসের ভুঁড়ি নিয়ে রসিকতা সদাবহমান। কিন্তু এই দৌড়ঝাঁপের চাকরিতে ওজন বাড়ে কেন? প্রচণ্ড স্ট্রেস-ই এঁদের ওজন বাড়ার কারণ।

৭. মার্কেটিং প্রফেশনাল—  বাজার বুঝতে বাজারে ঘোরার প্রয়োজন নেই। তার উপরে সাম্প্রতিক সময়ে মাউস ক্লিকেই কেটে যায় সারাদিন। তবে স্ট্রেস রয়েছে মারাত্মক। সব মিলিয়ে ওজনগত কারণে এঁরা বিপদসীমায়।

৮. আইটি প্রফেশনাল— একে চেয়ারবন্দি কাজ, তার উপরে চাকরি যাওয়ার টেনশন। মোটা মাইনের চাপে হালকা থেকে ভারী পানীয়াসক্তি। ওজন না বেড়ে যাবে কোথায়!

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*