নগরীতে দোল পূর্নিমায় মেতেছে তরুণ-তরুণীরা


চট্টগ্রামে দোল উৎসবে মেতে উঠেছে তরুন তরুনীরা। আগামীকাল দোল উৎসব হলেও আজ অনেকে পালন করতে দেখা গেছে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ।জানা গেছে, হাজারি লেইনে সোমবার সকাল থেকে শুরু হবে রং ছড়াছড়ি আনন্দে মেত উঠবে হাজারি লেইনের এলাকাবাসী।
শাস্ত্রজ্ঞদের অভিমত, বর্তমানে চলছে কলিযুগ। এর আগের দ্বাপরযুগ থেকেই শ্রীকৃষ্ণের দোলযাত্রা বা দোল উৎসব চলে আসছে। বলা হয়, শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটে ফাল্গুনী পূর্ণিমায়।
ফাল্গুনী পূর্ণিমা তিথির এ দিনে বৃন্দাবনের নন্দ কাননে শ্রীকৃষ্ণ আবীর ও গুলাল নিয়ে তার সখী রাধা ও তেত্রিশ হাজার গোপীর সঙ্গে রঙ ছোড়াছুড়ির খেলায় মেতে উঠেছিলেন। এরপর কৃষ্ণভক্তরা আবীর ও গুলাল নিয়ে পরস্পর রঙ খেলেন।এ আবীর খেলার স্মরণে হিন্দু সম্প্রদায় এই হোলি উৎসব উদযাপন করে থাকে। বলা হয়ে থাকে, কৃষ্ণ নিজের কৃষ্ণগাত্রবর্ণটি ঢাকতে গায়ে হরেক রঙ মেখে রাধার সামনে হাজির হতেন। সেই থেকেই নাকি এ উৎসবের শুরু।
উপমহাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্নভাবে দোল উৎসবের আচার-অনুষ্ঠান হয়ে থাকে জাঁকালোভাবে। অন্যসব অঞ্চলের মতো চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণীরা মেতে ওঠে দোল উৎসবে।সব বয়সের নারী-পুরুষই একে অপরকে আবিরের রঙে রাঙিয়ে দেয়।
নগরীর ফিশারিঘাট জেলেপাড়া, পাথর ঘাটা, হাজারি গলি, গোসাইল ডাঙ্গা, কৈবল্যধাম মালপাড়া বিভিন্ন স্থানে আজ সবাই মেতে উঠেছে আবীর-উৎসবে। কাল আবার এইখানে তরুণ- তরুণীরা মেতে উঠবে রঙের উৎসবে।

চট্টগ্রামের কর্ণফুলি নদীর ফিসারীঘাট এলাকায় সরেজমিনে দেখা যায়, প্যান্ডেল ও মঞ্চ বানিয়ে গানের তালে তালে আবীরের রঙ ছেটানোর-ছড়ানোর উৎসবে মেতে উঠেছে ফেইসবুক-ভিত্তিক একদল তরুণ-তরুণী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*